সদ্যপ্রাপ্ত :
নাঙ্গলকোটে হিযবুল্লাহ’র ঈদ-এ মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষ্যে মোবারক র‌্যালী নাঙ্গলকোটে জমি সংক্রান্ত বিরোধে শ্বাসরোধে নারীকে হত্যা চেষ্টা, ২শিশু-সহ আহত ৩ বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় কোরআন খতম ও আলোচনা সভা রোড মার্চ সফল করার লক্ষ্যে নাঙ্গলকোটে উপজেলা বিএনপির প্রস্তুতি সভা নাঙ্গলকোটে উপজেলা আ’লীগের আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালিত রোড মার্চ সফল করার লক্ষ্যে নাঙ্গলকোটে বিএনপির বিক্ষোভ নাঙ্গলকোটে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালিত নাঙ্গলকোটে ছিদ্দিকুর রহমান মজুমদার স্মৃতি পাঠাগারের উদ্যোগে কৃতি সংবর্ধনা নাঙ্গলকোটে ৫ কেজি গাঁজাসহ ১ রোহিঙ্গা আটক নাঙ্গলকোটে রোটারী ইন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে ১শ’ পরিবারে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ
নাঙ্গলকোট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকটে পাঠ দান ব্যাহত

নাঙ্গলকোট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকটে পাঠ দান ব্যাহত

কেফায়েত উল্লাহ মিয়াজী :

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার একমাত্র মাধ্যমিক সরকারি স্কুল নাঙ্গলকোট আরিফুর রহমান মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়। স্কুলটিতে প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থীর বিপরীতে রয়েছে মাত্র ৫জন শিক্ষক, এর মধ্যে আমেনা মজুমদার নামে এক শিক্ষক রয়েছে ১বছরের বিএড প্রশিক্ষণে। প্রতিষ্ঠানটির ৬ষ্ঠ থেকে ১০ শ্রেণীর প্রতিটিতে রয়েছে ২টি করে শাখা। বিদ্যালয়টি ২৭ অক্টোবর ২০১৮ সালে জাতীয়করণ হওয়ার পর থেকে শিক্ষক নিয়োগ বন্ধ রয়েছে। যার ফলে শিক্ষক সংকট নিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে স্কুলটির শিক্ষা কার্যক্রম। প্রয়োজনীয় সংখ্যক শিক্ষক না থাকায় স্কুলের পাঠ দান চলছে অতিথি শিক্ষক দিয়ে। বিদ্যালয়টিতে কোন গণিত ও ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষক নেই। প্রতিষ্ঠানটিতে ২৭ জন শিক্ষকের স্থলে আছে মাত্র ৫ শিক্ষক, ৭ কর্মচারীর স্থলে রয়েছে ৩জন। সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়টিতে শরীর চর্চা শিক্ষককে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক করে শিক্ষা ও প্রশাসনিক কাজ সম্পন্ন করা হচ্ছে। শিক্ষক সংকট থাকায় ১৪জন খন্ড কালিন শিক্ষক নিয়ে কোন রকম জোড়াতালি দিয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করা হচ্ছে। এতে করে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার ব্যাঘাত ঘটছে। ফলে মেধাশূণ্য হচ্ছে ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা।

এ ব্যাপারে অভিভাবক মাস্টার রেজাউল করিম মজুমদার বলেন, খন্ড কালিন শিক্ষক দিয়ে প্রকৃত পক্ষে ভাল লেখা পড়ার সুযোগ নেই। আমাদের সন্তানরা শিক্ষকের অভাবে প্রতিষ্ঠান বিমুখ হয়ে যাচ্ছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটিতে শিক্ষক নিয়োগের জোর দাবী জানান অভিভাবকগণ।
ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এস.এম রহমান ভূঁইয়া বলেন, বিদ্যালয়ে শিক্ষক সংকট থাকায় খন্ড কালিন শিক্ষক দিয়ে কোন রকম প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করা হচ্ছে। স্কুলটি সরকারি হওয়ার পর থেকে অধিকাংশ শিক্ষক অবসর গ্রহন করায় শিক্ষকদের পদ গুলো শূন্য হয়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
কারিগরি সহযোগিতায় : বি-কেয়ার আইটি, বাপ্পি মজুমদার ইউনুস #01711-286173